দুপুরেও জলাবদ্ধ রাজধানীর বিভিন্ন জায়গা

শেয়ার

গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে শুরু হওয়া কয়েক ঘণ্টার বৃষ্টির পর রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক-গলিতে জমে থাকা পানি সরেনি শুক্রবার দুপুরেও। ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের কুইক রেসপন্স টিম জলাবদ্ধতা নিরসনের চেষ্টা করলেও শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর বেশকিছু এলাকায় মূল সড়কে হাঁটু সমান বা তার চেয়েও বেশি পানি দেখা গেছে।

এছাড়া পুরান ঢাকাসহ নিম্ন এলাকাগুলোতে অলিগলি এবং ঘরের ভেতরেও পানি আটকে থাকতে দেখা গেছে। এতে করে বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুরু হওয়া ভোগান্তি এখনও কাটেনি নগরবাসীর।381183169_641511534736879_4855479635668122770_n

শুক্রবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সরেজমিন রাজধানীর নিউ মার্কেট, আজিমপুর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা, আনন্দবাজার, গুলিস্তান এবং গ্রিন রোড এলাকা ঘুরে দেখা গেছে কোথাও রয়েছে হাঁটু পানি, কোথাও আবার কোমর পরিমাণ পানি। কয়েকটি জায়গায় সিটি করপোরেশনের কুইক রেসপন্স টিমকে কাজ করতে দেখা গেলেও জনবল ছিল খুবই কম।

দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল্লাহ মুসলিম হল সংলগ্ন রাস্তায় দেখা যায়— মাঝে মাঝে যেন স্রোত বইছে। হলবন্দি হয়ে পড়েছে হাজারো শিক্ষার্থী। অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয় সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটসহ আশপাশের হলগুলোতে প্রবেশ করেছে বৃষ্টির পানি। শিক্ষার্থীরা আটকা পড়েছে হলে।380799002_1969897670046093_2660172656646747582_n

রাজধানীর আজিমপুরে দেখা গেছে, বিভিন্ন গলি, দোকানপাট এবং বাসা বাড়ির নিচতলাতেও বাসিন্দারা পানি সরানোর চেষ্টা করছেন। তবে আশপাশের ড্রেনগুলোতে পানি জমে যাওয়াতে পানি সরানোর চেষ্টা করেও কোনও লাভ হচ্ছে না।

লালবাগের ৮ নাম্বার গলির বাসিন্দা সাখাওয়াত আলী জানান, রাতের বৃষ্টির পর মধ্যরাতে তাদের গলি ভেসে বাসায় পানি আসতে শুরু করে। বিভিন্নভাবে পানি আটকানোর চেষ্টা করেও তা সম্ভব হয়নি। বৃষ্টি থামার পর পানি অপসারণের জন্য ছোট বালতির মাধ্যমে অনেকক্ষণ চেষ্টা করে মোটামুটি ঘরে ঢোকার ব্যবস্থা করা গেছে।

একই এলাকার মুদি দোকানি শাহ আলম খোকন বলেন, রাতের বৃষ্টিতে দোকানে পানি ঢুকে অন্তত পাঁচ লাখ টাকার মুদি মালামাল ভিজে গেছে। অনেক চেষ্টা করেও পানি সরাতে না পেরে অনেক মালামাল ফেলে দিতে হয়েছে।381228901_1459125581600726_2351543840610039386_n

নিউমার্কেট ঘুরে দেখা যায়, মার্কেটের ভেতর-বাইরে এখনও কোমর সমান পানি। মিরপুর সড়কেও রয়েছে পানি। ঝিগাতলা থেকে নিউমার্কেট পর্যন্ত অংশে দুপুর পর্যন্তও পানি নামেনি। এসময় দেখা যায়- প্রায় প্রতিটি দোকানেই প্রবেশ করেছে বৃষ্টির পানি। নিচু দোকানগুলো প্রায় অর্ধেক অংশ পানির নিচে। নষ্ট হয়েছে গুরুত্বপূর্ণ মালামাল।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) জনসংযোগ বিভাগ থেকে জানানো হয়, রাত থেকেই তাদের কুইক রেসপন্স টিম মাঠে কাজ করছেন।

এছাড়া শুক্রবার সাধারণ ছুটি হলেও তারা তাদের কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করেছেন। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) জনসংযোগ বিভাগ কোথাও পানি জমে থাকলে ১৬১০৬ নাম্বারে নগরবাসীকে ফোন করতে বলা হয়েছে। এছাড়া সমস্যার সমাধানে দুই সিটি করপোরেশনই নগরবাসীর সাহায্য চেয়েছে।

সম্পর্কিত খবর

No widgets found. Go to Widget page and add the widget in Offcanvas Sidebar Widget Area.