চ্যাঞ্চল্য ছড়াল বাহামা দ্বীপপুঞ্জের সমুদ্র সৈকতের তীরে পাওয়া একটি ৪১ কেজির গোলাকার বিশাল ধাতব বস্তু। এর গায়ে রাশিয়ান ভাষায় অনেক কিছু লেখা। তবে এটা আসলে কি তা এখনো স্পষ্ট নয়। বস্তুটি মহাকাশযানের অংশ কিনা তা নিয়ে ব্যাপক জলঘোলা হয়েছে।

জানা গেছে, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি বাহামার হারবার আইল্যান্ডের সৈকতে বলটি পড়ে থাকতে দেখেন ম্যানন ক্লার্ক নামের এক ব্রিটিশ নারী। ভারী হওয়ায় বস্তুটিকে সরাতে ব্যর্থ হয়ে তিনি ছবি তুলে পরিবারকে দেখায়। পরে সবাই মিলে বালি খুঁড়ে তোলার চেষ্টা করা হয়। মনে করা হচ্ছে, বলটি টাইটেনিয়াম ধাতুর তৈরি। তবে এর উৎস এবং কীভাবে ওখানে এল তা এখনও নিশ্চিত নয়।
এদিকে, বস্তুটি কোনও কৃত্রিম উপগ্রহ কিংবা রকেটের অংশ মহাকাশ গবেষকরা মনে করছেন। রাশিয়ান ভাষায় যা লেখা, তার অর্থ ‌‘বলটি মাইনাস ১৯৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা পর্যন্ত কার্যক্ষম এবং তার আয়তন ৪৩ লিটার’।

বলটি নিয়ে ভার্জিন গ্যালাকটিকের চেয়ারম্যান মার্ক মোরাবিতো বলছেন, ‘৯৯ শতাংশ ওটা নিশ্চিত রকেটের হাইড্রাজিন প্রোপেল্যান্ট ট্যাঙ্ক।’ অপর একজনের দাবি, এমনও হতে পারে, বস্তুটা কিউবা থেকে এসেছে, কারণ কিউবা এক সময় রাশিয়ার মিত্রদেশ ছিল।

সূত্র : ইন্ডিপেন্ডেন্ট

Print Friendly, PDF & Email

রিপ্লাই দিন:

আপনার কমেন্ট দিন
দয়া করে নাম লিখুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.