লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে ডাকাতের গুলিতে নিহত-১, আহত-৪, আটক-২

শেয়ার

laxmipur-map

কমলনগর (লক্ষ্মীপুর) সংবাদদাতাঃ
লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে ডাকাতের গুলিতে আবদুল ওয়াদুদ জমাদার নামে এক গৃহকর্তা  নিহত হয়েছেন। এসময় ডাকাতদের হামলায় দুইজন গুলিবিদ্ধসহ দুই পরিবারের ৪ জন আহত হন।
মঙ্গলবার দিবাগত রাত ২ টার দিকে উপজেলার করইতলার চরলরেঞ্চ গুদাম রোড এলাকার আবদুল ওয়াদুদ জমাদার বাড়ীতে এ ঘটনা ঘটে।
এদিকে ডাকাতির সাথে জড়িত সন্দেহে ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
নিহত আবদুল ওয়াদুদ উপজেলার চর লরেন্স ইউনিয়নের চরলরেঞ্চ গ্রামের মৃত সকু জমাদারের ছেলে। তার মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। আহতদের মধ্যে আশংকাজনক অবস্থায় আব্দুর রহমান ও রাসেল আহমেদকে নোয়াখালী মেডিকেল কলেজ  হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অপর আহত আরজু বেগম ও আবু তাহের প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।
পুলিশ ও আহত আবদুর রহমানের স্ত্রী নুরজাহান জানান, রাতে ২০ থেকে ২৫ জনের একদল অস্ত্রধারী ডাকাত ফাঁকা গুলি করে আবদুল ওয়াদুদের ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে। এ সময় নিহত আবদুল ওয়াদুদের ছেলে আবদুর রহমান ও রাসেল তাদের বাঁধা দিলে ডাকাতরা তাদের কুপিয়ে আহত করলে আবদুল ওয়াদুদ তাদের বাঁচাতে এগিয়ে আসলে ডাকাতরা তাকেও কুপিয়ে ও অস্ত্র ঠেকিয়ে গুলি করে। এসময় পরিবারের লোকজনকে  হাত পা বেঁধে মারধর করে ২০ ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ ২০ হাজার টাকাসহ বিদেশ থেকে আনা মুল্যবান মালামাল লুটে নেয় তারা। পরে ডাকাতরা সেখান থেকে বের হয়ে নিহতের ভাই আবু তাহেরের ঘরের দরজা ভেঙ্গে পরিবারের সদস্যদের বেঁধে রেখে ঘরে থাকা নগদ টাকা ও মূল্যবান মালামাল লুটে নেয়। শোর চিৎকারে আসপাশের লোকজন ছুটে আসলে ডাকাতরা ফাঁকা গুলি ছুড়তে ছুড়তে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে কমলনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার আবদুল ওয়াদুদকে মৃত ঘোষণা করেন।
এ ঘটনায় দুই ঘর থেকে ২০ ভরি স্বর্ণালংকার ও আসবাবপত্রসহ প্রায় ১০ লাখ টাকার মালামাল লুট করে বলে জানায় ভুক্তভোগীরা। খবর পেয়ে কমলনগর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে এ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে অন্ধ আমিন ও তার স্ত্রীকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে বলে জানান কমলনগর থানার অফিসার ইনচার্জ কবির আহাম্মদ।

No widgets found. Go to Widget page and add the widget in Offcanvas Sidebar Widget Area.