রায়পুরে স্বামীকে হত্যা, স্ত্রী আটক

শেয়ার

পল্লী নিউজ ডেস্ক:

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে স্ত্রী’র পরকিয়ায় বাধা দেওয়ায় স্বামী আবু তাহেরকে (৫৫) জবাই করে হত্যা করে সেফটিক ট্যাংকে গুম করে স্ত্রী। তিন দিন পর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় ঘাতক স্ত্রী রাবেয়া খাতুনকে (৩৫) আটক করে পুলিশ।

শুক্রবার (২৭ জানুয়ারি) রাত ১১টার দিকে রায়পুর উপজেলার দক্ষিণ চরপাতা গ্রামের রেহান উদ্দিন জমাদার বাড়ির একটি সেফটিক ট্যাংক থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এর আগে গত বুধবার (২৫ জানুয়ারি) স্ত্রী তার সহযোগীদের নিয়ে স্বামীকে জবাই করে হত্যা করে।

শুক্রবার (২৭ জানুয়ারি) নিহতের বড় ভাই থানায় নিখোঁজের জিডি (সাধারণ ডায়বি) করলে পুলিশের তদন্তে ধরা পড়ে স্ত্রী। আটক করে জিজ্ঞাসা করলে বেরিয়ে আসে হত্যার রহস্য। উদ্ধার হয় মৃতদেহ। তবে তদন্ত ও গ্রেফতারের স্বার্থে হত্যায় জড়িত অন্যদের নাম প্রকাশ করেনি পুলিশ।

নিহত আবু তাহের রায়পুর উপজেলার দক্ষিণ চর পাতা গ্রামের মৃত নুরুল হকের ছেলে। ১৬/১৭ বছর আগে রাবেয়া খাতুনের সঙ্গে আবু তাহেরের বিয়ে হয়ে। তাদের সংসারে দুইটি মেয়ে ও একটি ছেলে রয়েছে।

স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা যায়, স্ত্রীর পরকিয়ার জের ধরে দীর্ঘদিন থেকে তাদের মধ্যে পারিবারিক কলোহ চলছিল। এ নিয়ে একাধিকবার সালিশ বৈঠকও হয়েছে।

নিহতের বড় ভাই নুরুল ইসলাম জানান, তিনদিন আগে বুধবার (২৫ জানুয়ারি) থেকে তার ভাই নিখোঁজ। আতœীয়-স্বজনসহ সম্ভাব্য সকল স্থানে খোঁজ নিলেও সন্ধ্যান মিলেনি। যে কারণে শুক্রবার সকালে রায়পুর থানায় একটি জিডি (সাধারণ ডায়রি) করি। জিডি করার পর পুলিশ তদন্তে যায়। প্রাথমিক তদন্তে সন্দেহ হলে স্ত্রীকে আটক করে জিজ্ঞাসা করা হয়। এতে সহযোগীদের নিয়ে স্বামীকে জবাই করে হত্যা করার দায় স্বীকার করে সে। পরে তার তথ্যমতে সেফটিক ট্যাংক থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

লক্ষ্মীপুরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, মৃতদেহ উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে ।  স্ত্রীকে আটক করা হয়েছে। হত্যায় জড়িত অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 

No widgets found. Go to Widget page and add the widget in Offcanvas Sidebar Widget Area.