খুলনায় মোংলা-ঘসিয়াখালী খাল উন্নীতকরণ প্রকল্প-ধারণাগত বিষয়ক কর্মশালা

শেয়ার

মোঃ হাসিবুজ্জামান টিপু, খুলনা প্রতিনিধি 

মোংলা-ঘসিয়াখালী খাল উন্নীতকরণ প্রকল্প-ধারণাগত বিষয়ক কর্মশালা আজ (মঙ্গলবার) সকালে খুলনা সার্কিট হাউজের সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন।

প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বলেন, মোংলা-ঘসিয়াখালী খাল বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলকে দেশের অন্যান্য অংশের সাথে সংযোগকারী একটি গুরুত্বপূর্ণ চ্যানেল। যা ভারত-বাংলাদেশ প্রটোকল রুটের অংশ। মোংলা বন্দর থেকে ঘসিয়াখালী ২৬ কিলোমিটার বি¯ৃÍত এই খাল মোংলা নদী, কুমারখালি নদী এবং একটি খননকৃত খাল নিয়ে গঠিত। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ ১৯৭০ সালে খালটি খনন করা হয়েছিলো। ২০০১ সাল থেকে খালটি আবার নৌচলাচল সংক্রান্ত সমস্যার সম্মুখীন হয় এবং ২০১০ সালে শুকিয়ে যায় এবং জাহাজ চলাচল ব্যাহত হয়। ২০১৪ সালে এই খালের কার্যকারিতা ফিরিয়ে আনার জন্য ক্যাপিটাল ড্রেজিং শুরু হয়েছিলো এবং ২০১৮ সাল থেকে জাহাজ চলাচলের উপযুক্ত হয়। তিনি বলেন, বর্তমানে খালের প্রবেশ পথে পলি জমেছে এবং উল্লেখযোগ্য পরিমাণে ড্রেজিং এর প্রয়োজন। কিন্তু প্রতি বছর ২০-২৫ লাখ ঘনমিটার ড্রেজিং করা সম্ভব নয়। টেকসই ও দীর্ঘ মেয়াদী সমাধানের প্রয়োজন। এই চ্যানেল ধরে রাখার জন্য বিভিন্নভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছে সরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মোংলায় ৮৩টি খাল খননের জন্য পাঁচশত ৮৩ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছিলেন। এই প্রকল্পটি ইউএসএআইডি এবং ডিএআই এর মাধ্যমে বাস্তবায়িত হবে বলে আশা করেন মেয়র।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাগেরহাট-৩ আসনের সংসদ সদস্য বেগম হাবিবুন নাহার ও বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) এর চেয়ারম্যান কমডোর আরিফ আহমেদ মোস্তফা। খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মোঃ হেলাল মাহমুদ শরীফের সভাপতিত্বে কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিআইডব্লিউটিএ এর প্রধান প্রকৌশলী মোঃ রকিবুল ইসলাম তালুকদার। কী-নোট পেপার উপস্থাপন করেন ইউএসএআইডি’র টিম লিডার জিহান হেনরি। কর্মশালায় বিশেষজ্ঞ পরামর্শ হিসেবে বক্তব্য রাখেন আইডব্লিউএম এর প্রধান নির্বাহী মোঃ জহিরুল হক খান, মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের প্রধান প্রকৌশলী শেখ শওকত আলী ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ড. মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন।

কর্মশালায় বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তারা অংশ নেন।

প্রসংঙ্গত, বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ), ইউএসএআইডি এর অর্থায়নে মোংলা-ঘসিয়াখালী খাল আপগ্রেডিং প্রজেক্ট-কনসেপচুয়াল স্ট্যাডি শীর্ষক প্রাক-সম্ভাব্যতা সমীক্ষা করার উদ্যোগ নিয়েছে। এর ফলশ্রুতিতে ইউএসএআইডি ও ডিএআই গ্লোবাল এলএসসি এর মাধ্যমে মোংলা-ঘসিয়াখালী খাল আপগ্রেডিং প্রকল্পের জন্য ডেল্টা কনটেক্সটের একটি কনসোর্টিয়াম, নেদারল্যান্ডস, উইটিভেন+বোস, নেদারল্যান্ডস এবং ইন্সটিটিউট অফ ওয়ার্টার মডেলিং, বাংলাদেশকে নিয়োগ করেছে।

উল্লেখ্য, এই কর্মশালার উদ্দেশ্য হলো মোংলা-ঘসিয়াখালী খালের নাব্যতা উন্নয়ন করার প্রস্তাবিত সমীক্ষার বিষয়ে স্থানীয় অংশীজন যেমন স্থানীয় কর্তৃপক্ষ, স্থানীয় জনগণ, ব্যবসায়ী, ফ্লিট অপারেটর ও জাহাজ নির্মাতাদের সুচিন্তিত মতামত নেওয়া। প্রস্তাবিত সমীক্ষার সাথে সংশ্লিষ্ট সামাজিক ও পরিবেশগত দিকগুলোতেও বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হবে।

সম্পর্কিত খবর

No widgets found. Go to Widget page and add the widget in Offcanvas Sidebar Widget Area.