কমলনগরে টানা ৩৬ ঘন্টা বিদ্যুৎ নেই

শেয়ার

নিজস্ব প্রতিবেদক:

প্রবল বষর্ণের ৩য় ‍দিন শুক্রবার (২২ এপ্রিল) সকাল ১০টায় লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে বিদ্যুৎ চলে যায়। মাঝে রাতে  মাত্র ১০ মিনিটের জন্য বিদ্যুৎ আসে। এর পর থেকে আর দেখা নেই। এ প্রতিবেদন লেখার সময় আজ সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বিদ্যু ফিরেনি।

বিদ্যুতের হেল্প লাইনে ঘন্টার পর ঘন্টা কল করলেও কেউ রিসিভ করছে না। টানা ৩৫ ঘন্টার বেশি সময় বিদ্যুৎ না থাকায় জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে ওঠেছে।

বিদ্যুৎ বিভাগের এ রকম খামখেয়ালী মনোভাবের কারণে চলমান এইচএসসি পরীক্ষা ও আলিম পরীক্ষার্থীদের লেখাপড়ার বিঘ্ন ও পুরো উপজেলার মানুষের বাসাবাড়িতে থাকা ফ্রিজে সংরক্ষিত খাবার, ও ইলেকট্রনিক্স যন্ত্রপাতি নষ্টসহ প্রায় ২লাখ নাগরিক চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে।

কি কারণে বিদ্যুৎ নেই বা কখন বিদ্যুৎ ফিরবে তাও কেউ জানতে পারছেন না।এতে সাধারণ মানুষের মাঝে ক্ষোভ বাড়ছে।

উপজেলার হাজিরহাট, লরেন্স, করুনানগর, করইতলা ও তোরাবগঞ্জ বাজারের এমন চিত্র দেখা গেছে। বেশ কয়েকজন গ্রাহক অভিযোগ করে বলেন, সামান্য বৃষ্টি হলেই এ উপজেয়া বিদ্যুৎ থাকে না।নাগরিকদের পক্ষ থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য কর্তৃপক্ষকে একাধিকবার ফোন করলেও কেউ রিসিভ করছে না। এনিয়ে উপজেলাবাসির মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। এদিকে প্রায় ১মাস যাবৎ বিদ্যুতের লো-বল্টেজ থাকার কারনে কম্পিউটারসহ অন্যান্য ইল্কেট্রনিক্স যন্ত্রপাতি অকোজো হয়ে পড়ছে।

হাজিরহাট বাজারের ব্যবসায়ি রহিম জানান, বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ একমাস দেরি হলেই বিদ্যুতের লোকজন লাইন সংযোগ বিচ্ছিন্ন করতে গ্রাহকের বাড়িতে চলে আসে। কিন্তু আকাশে বিদ্যুৎ চমকালে বা বৃষ্টি হলে এই এলাকায় ৩ থেকে ৪ দিন ধরে বিদ্যুৎ থাকে না। দ্রুত বিদ্যুৎ সরবরাহের বিষয়ে বিদ্যুৎ বিভাগে ফোন দিয়েও কারো সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

No widgets found. Go to Widget page and add the widget in Offcanvas Sidebar Widget Area.